কেটে গেলে টিটেনাস কত দিনের মধ্যে দিতে হয়,মেডিসিন ও স্বাস্থ্য টিপস

কেটে গেলে টিটেনাস কত দিনের মধ্যে দিতে হয় , সাধারণত জন্মের পরেই শিশুদের টিটেনাসের তিনটে ডোজ় দেওয়া হয়, তার পর দ্বিতীয় বছরে একটা, চার থেকে সাত বছর একটা এবং দশ বছরে একটা ডোজ় দেওয়া হয়।অভিজ্ঞতাদের পরামর্শ অনুযায়ী  পুরোটাই চলে সরকারি নির্দেশানুযায়ী। এর পরে বলা হয় প্রতি দশ বছরে একটা করে বুস্টার ডোজ় নিতে।

কেটে গেলে টিটেনাস কত দিনের মধ্যে দিতে হয়



টিটেনাস টক্সাইড আগে ছিল কেটে যাওয়া বা ছড়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে হবার ২৪ ঘন্টার মদ্ধ্যে এক ডোজ ইঞ্জেকশন ৩মাস পরে আবার এক ডোজ আর ১ বছর পর শেষ ডোজ নিতে হবে। অভিজ্ঞতাদের পরামর্শ অনুযায়ী  তাহলে আগামী ৫ বছর আপনার টিটেনাস সঙ্ক্রমন হবেনা।


টিটেনাস টক্স্যয়েডের টিকা সুরক্ষা দেয় ধনুষ্টঙ্কার হবার আশঙ্কা থেকে। . মাটি, ধুলাবালি, ময়লা-আবর্জনা, লোহার মরিচায় রোগের জীবাণু থাকে।অভিজ্ঞতাদের পরামর্শ অনুযায়ী   শুধু কাটা ছেঁড়ার ক্ষত থেকেই না; চামড়া পুড়ে গেলে, মানুষ বা জীবজন্তুর কামড় ও দংশনে ক্ষত হলে, মায়ের জরায়ুতে ভ্রণের মৃত্যু হলে, দূষিত সিরিঞ্জ দিয়ে ইনজেকশন নিলে, হাড় ভেঙে চামড়া ভেদ করে বেরোলে, ত্বকে দীর্ঘ দিনের ঘা থাকলে টিটেনাস ইনফেকশন হতে পারে।

 

শরীরের যে কোন কাটা স্থানে জীবাণুটি আক্রমণ করে 

হাসপাতাল সমুহে সঠিক ভাবে অস্ত্রপচারের যন্ত্রপাতি সঠিক ভাবে পরিস্কার না করে ব্যাবহারের কারনে,অভিজ্ঞতাদের পরামর্শ অনুযায়ী  নবজাতকের নাড়ি কাটার সময় পুরাতন ব্লেড কিংবা চাকুর ব্যবহারে বেশী সম্ভাবনা থাকে ধনুষ্টংকার বা টিটেনাস হওয়ার ।


মাস তিনেক আগে আছাড় খেয়ে ডান হাতে প্রচন্ড ছড়ে গিয়েছিল, রাস্তার নোরাংয় এর সঙ্ক্রমন হতে পারে ধরে নিয়ে ফার্মেসীতে গেলাম একটা টেটভ্যাক দিয়ে দিল। অভিজ্ঞতাদের পরামর্শ অনুযায়ী  মেয়েটিকে জিজ্ঞাসা করলাম আবার কবে দিতে হবে? সে উত্তর দিল যে এখন একবার টেটভ্যাক নিলে এক বছর ইমিউনিটি থাকবে। এরকম ঘটনায় আগামি এক বছর আপনাকে এই ভ্যাক্সিন দিতে হবে না। এখন ওষুধ এভাবেই তৈরি হয়েছে।


বিশেষজ্ঞদের মতে, আগেকার দিনে বাড়িতে সদ্যোজাত সন্তান জন্মানোর পরে অনেক জায়গাতেই শিশুর আম্বলিকাল কর্ড কাটার সময়ে সেখানে গোবর ও মাটির প্রলেপ লাগানো হত। অভিজ্ঞতাদের পরামর্শ অনুযায়ী  তা থেকে টিটেনাস হয়ে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই শিশুটি মারা যেত।

এই রীতি এখন আর চালু নেই। তা ছাড়া, রোগটির প্রকোপও এখন সে ভাবে দেখা বা জানা না গেলেও, টিটেনাস অবহেলা করা একেবারেই উচিত নয় বলে জানালেন জেনারেল ফিজ়িশিয়ান ডা. সুবীরকুমার মণ্ডল।

তথ্যসূত্র: হেলথলাইন