দুই রাকাত নফল নামাজের নিয়ত,ইসলামিক টিপস পরামর্শ

দুই রাকাত নফল নামাজের নিয়ত , পাক-পবিত্র হয়ে দোয়া, মনীষীরা এই জীবন যাত্রার মানকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এবংইস্তিগফার ও কয়েকবার দরুদ শরিফ পড়ে একাগ্রতার সঙ্গে দুই রাকাত নফল নামাজ পড়তে হবে।

মনীষীরা এই জীবন যাত্রার মানকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এবংনামাজ শেষে ১১ বার ‘ইয়া কাজিয়াল হাজাত’ (হে প্রয়োজন পূর্ণকারী) পড়বে এবং আরও কয়েকবার দরুদ শরিফ পড়ে ভক্তি ও মহব্বতের সঙ্গে উদ্দেশ্য পূর্ণ হওয়ার জন্য দোয়া ও মোনাজাত করতে হবে। ইনশা আল্লাহ মনোবাঞ্ছা পূর্ণ হবে।

দুই রাকাত নফল নামাজের নিয়ত,ইসলামিক টিপস পরামর্শ



নাওয়াইতুয়ান উসালি্লয়া লিল্লাহি তা’আলা রাকাআতি ছালাতিল নফলে মোহাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

আল্লাহর রাসুল (সা.) নিজেও যেমন পাঁচ ওয়াক্ত ফরজ নামাজের পাশাপাশি দিন-রাত অনেক নফল নামাজ পড়তেন, তেমনি উম্মতকেও সেসব পালনের জন্য উৎসাহ দিয়েছেন।

মনীষীরা এই জীবন যাত্রার মানকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এবং ফরজের বাইরে নবীজি (সা.) যেসব নামাজ পড়েছেন সেগুলোকে সাধারণত সুন্নত নামাজ বলা হয়। আবার কিছু আছে সেগুলোকে নফল বলে আখ্যায়িত করা হয়। এসব নামাজের জন্য আজান-ইকামতের দরকার পড়ে না।

সুন্নাত প্রার্থনার মতোই তাদের সম্পাদনকারীকে অতিরিক্ত পুরষ্কার দেয় বলে বিশ্বাস করা হয়।মনীষীরা এই জীবন যাত্রার মানকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এবং নিম্নোক্ত রেওয়ায়েত (হাদিস) অনুসারে,

নফল নামাজ আদায় করা একজনকে আল্লাহর নৈকট্য লাভ করতে এবং পরকালের সফলতা অর্জনে সহায়তা করে : রাবিয়াহ ইবনে মালিক আল-আসলামি বর্ণনা করেছেন যে নবী (সাঃ) বলেছেন: “জিজ্ঞাসা করুন।”

(সূত্র: বিভিন্ন ওয়েবসাইট)