পানি পান করার দোয়া

পানি পান করার দোয়া , জমজমের পানি পান করার দোয়া।দিনে কতটুকু পানি ,বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী,মনীষীরা এই জীবন যাত্রার মানকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এবং  কিন্তু পানি কত বেশি? “কিডনি দূর করতে পারে তার চেয়ে বেশি পান করলে কিছু লোকের হাইপোনেট্রেমিয়া হতে পারে,” বলেছেন হুলটিন, উল্লেখ করেছেন যে কিডনি প্রতি ঘন্টায় 27 থেকে 34 আউন্স জল, বা প্রতিদিন মোট 676 থেকে 947 আউন্স (20 থেকে 28 লিটার) জল নির্মূল করতে পারে৷ . এর থেকেও বেশি কিছু আপনাকে ডেঞ্জার জোনে ফেলতে পারে।

পানি পান করার দোয়া

 

পরিষ্কার পাত্রে পানি পান করা। রসুল (স.) এ ব্যাপারে কড়া নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেন, রাতের বেলা পানপাত্র আন্দোলিত না করে (পরিষ্কার না করে) পানি পান করবে না। তবে পাত্র ঢাকা অবস্থায় থাকলে ভিন্ন কথা। (ইবনে মাজাহ, হাদিস-৩৪৭১)

 

তাওয়াফ শেষে জমজম পানি পানের নিয়ম ও দোয়া


জমজম পানি পানের নিয়ম ও দোয়া ..

.
উচ্চারণ: বিসমিল্লাহি ওয়াল হামদু লিল্লাহি ওয়াছ ছলাওয়াতু ওয়াস সালামু আ’লা রাসুলিল্লাহ। …


পানি পানের পর নিচের দোয়াটি পড়ুন: …


উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা ইন্নী আসআলুকা ‘ইলমান নাফিয়াও ওয়া রিযকাও ওয়াসিআও ওয়াশিফাআম মিন কুল্লি দায়ি।


آللهم آنى آسآلك علمآ نآفعآ و رزقآ وآسعآ و شفآعآ.
তরজমাঃ-হে আল্লাহ আমাকে উপকারী এলেম দান করুন। এবং রিযিকের প্রাচুর্য দান করুন। এবং আরোগ্যতা দান করুন।



পানি পান করার শুরুতে এই দোয়া


পড়বে –
ﺑِﺴْﻢِ ﺍﻟﻠّﻪ ﺍﻟﺮَّﺣْﻤﻦِ ﺍﻟﺮَّﺣِﻴْﻢِ
উচ্চারণ ঃ বিস্মিল্লাহির
রাহমানির রাহীম।

 

ওজন অনুযায়ী কতটুকু পানি পান করা উচিত

 

আমার দিনে কতটা পান করা উচিত? বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী,মনীষীরা এই জীবন যাত্রার মানকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এবং  , একজন সুস্থ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের প্রতি কিলোগ্রাম শরীরের ওজনের জন্য প্রতিদিন প্রায় 35 মিলি জল প্রয়োজন। অন্তত বৈজ্ঞানিক সংস্থার সাধারণ নির্দেশিকা অনুযায়ী। 50 কিলোগ্রাম ওজনের একজন ব্যক্তির জন্য 1.7 লিটার, 60 কিলোগ্রাম 2.1 লিটার, 70 কিলোগ্রাম 2.4 লিটার এবং 80 কিলোগ্রাম 2.8 লিটার প্রয়োজন।

 



পানি পান করার সকল দো’য়া


>> পানি পান করার শুরুতে এই দোয়া পড়তে হয়—-
بِسْمِ اللّه الرَّحْمنِ الرَّحِيْمِ
উচ্চারণঃ- বিস্মিল্লাহির রাহমানির রাহীম।

>> পান করা শেষ হলে এই দোয়া পড়তে হয়—-
اَلْحَمْدُ لِلّهِ الَّذِيْ جَعَلَه عَذْبًا فُرَاطًا بِرَحْمَتِه وَ لَمْ يَجْعَلْه مِلْحًا اُجَاجًا بِذُنُوبِنَا
উচ্চারণঃ- আল্হামদুলিল্লাহীল্লাজী জা‘আলাহু আ‘জবান ফুরাতান ওয়া লাম ইয়াজআ‘ললাহু মিলহান উজাজান।


পান করা শেষ হলে এই দোয়া পড়বে


ﺍَﻟْﺤَﻤْﺪُ ﻟِﻠّﻪِ ﺍﻟَّﺬِﻱْ ﺟَﻌَﻠَﻪ ﻋَﺬْﺑًﺎ ﻓُﺮَﺍﻃًﺎ ﺑِﺮَﺣْﻤَﺘِﻪ ﻭَ ﻟَﻢْ
ﻳَﺠْﻌَﻠْﻪ
ﻣِﻠْﺤًﺎ ﺍُﺟَﺎﺟًﺎ ﺑِﺬُﻧُﻮﺑِﻨَﺎ
উচ্চারণ ঃ আল্হামদুলিল্লাহ
ীল্লাজী জা‘আলাহু
আ‘জবান ফুরাতান ওয়া লাম
ইয়াজআ‘ললাহু মিলহান
উজাজান।



>> চা, কফি, ঠান্ডা ইত্যাদি পানীয় পান করার সময় পড়তে হয়—-
اَللّهُمَّ بَارِكْ لَنَا فِيْه وزِدْنَا مِنْه
উচ্চারণঃ- আল্লাহুম্মা বারিকলানা ফীহী ওয়াজিদনা মিনহু।



>> যমযমের পানি কিবলামূখী হয়ে পান করার সময় এই দোয়া পড়তে হয়—-
اَللهُمِّ اِنّيْ اَسْأَلُكَ عِلْمًا نَافِعًا وَرِزْقًا وَاسِعًا وَشِفَاءً مِنْ كُلِّ دَاءٍ
উচ্চারণঃ- আল্লাহুম্মা ইন্নী আ‘সআলুকা ই‘লমান নাফি‘আ ওয়া রিজকান ওয়াছি‘আ ওয়া সিফাআম মিন কুল্লি দায়ীন।

 

কতক্ষণ পর পর পানি পান করা উচিত?


এ বিষয়ে পুষ্টিবিদ তামান্না চৌধুরী বলেন, ভারী খাবার খাওয়ার ২০ থেকে ২৫ মিনিট পর পানি পান করা ভালো। এতে হজম ঠিকমতো হয়। যাঁদের অ্যাসিডিটি বা গ্যাসের সমস্যা রয়েছে, এতে তাঁদের উপকার। ‘ভাত খাওয়ার পরপরই পানি পান ঠিক নয়, এটি বিজ্ঞানসম্মত মত।