মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঔষধের নাম

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঔষধের নাম , মুখের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য এলোপ্যাথিক ওষুধের নাম ., মুখের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য বাজারে বিভিন্ন ধরনের এলোপ্যাথিক ওষুধ পাওয়া যায় । সেই ওষুধের মধ্যে ভালো মানের ওষুধ টির নাম আমরা আমাদের পোস্টের মাধ্যমে তুলে ধরব ।

 

আর জানিয়ে দেবো কি কি ওষুধ মুখের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য পাওয়া যায় সেসকল ওষুধের নাম সম্পর্কে । কোন কোন এলোপ্যাথিক ওষুধ দ্বারা মুখের দুর্গন্ধ দূর করা যায় সে সকল ওষুধের নাম জেনে নেয়া যাক ।যেমন লিস্টাকেয়ার, ওরোক্লিন, ওরোস্টার কুল মিন্ট ইত্যাদি



মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঔষধের নাম


তো প্রথমেই আমরা জেনে নেব কি কি কারনে এই মুখের দুর্গন্ধ হয়ে থাকে সর্বপ্রথম আপনি যখন ঘুম থেকে উঠবেন তখনই আপনার মুখ থেকে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হবে তাছাড়া আপনি যখন আবার খাবার গ্রহণ করবেন আবার এর মাধ্যমেও আপনার মুখের দুর্গন্ধ সৃষ্টি হয়।




আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছে যারা কিনা ধূমপান করে আর এই ধূমপানের কারণেও মুখের দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। তাছাড়া ধূমপান দাঁত ও মাড়ির ক্ষতিতে সাহায্য করে আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই ধূমপান পরিত্যাগ করার চেষ্টা করব।





অ্যান্টিসেপটিক মাউথ ওয়াশ ।তার মধ্যে সবচেয়ে ভালো মাউথ ওয়াশ হল ওরোস্টার™ – Orostar™। এটি স্কয়ার কোম্পানির ।



ওরোস্টার™ – Orostar™ মাউথ ওয়াশের দাম

১২০ মিলি বোতলের দাম ৮০. ২৪ টাকা

ওরোস্টার™ – Orostar™এর কাজ


এখন আমি আমার পোস্টের মাধ্যমে ওরোস্টার™ এর কাজ কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরব । অনেকেই আছেন ওরোস্টার™ কোন ধরনের কাজ করে সে সম্পর্কে জানার জন্য অনলাইনে সার্চ করে থাকেন । তাহলে আসুন জেনে নেয়া যাক ওরোস্টার™ এর কাজ কি সে সম্পর্কে ।



দাঁতের মাঝখানের জীবানুকে ধ্বংস করে
প্ল্যাক ও জিনজিভাইটিস প্রতিরোধ করে এবং কমায়
মুখের দুর্গন্ধের বিরুদ্ধে কাজ করে


টারটার নিয়ন্ত্রণ করে যা দাঁতকে বিবর্ন করে
দাঁত পরিষ্কার ও উজ্জ্বল করে বছরের পর বছর ধরে কার্যকর এবং নিরাপদ বলে প্রমানিত



মুখের দুর্গন্ধ বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে। এর মধ্যে অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে গ্যাসের সমস্যা। অর্থাৎ আমাদের যাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা আছে তাদের মুখের দুর্গন্ধ হওয়া স্বাভাবিক। তাই মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে হলে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া উচিত। এছাড়া প্রতিদিন দুইবেলা ব্রাশ করা এবং মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন। আশা করি এতে ভাল ফলাফল পাবেন।

 


মাউথ ওয়াশ ব্যবহারের নিয়ম

 



পূর্ণশক্তির ২০ মি.লি. (৪ চা চামচ) ওরোস্টার এন্টিসেপটিক মাউথওয়াশ দিয়ে সকালে ও রাতে কুলকুচি করে ফেলে দেন।অ্যান্টিসেপটিক মাউথ ওয়াশ দিয়ে অন্তত ৩০ সেকেন্ড সময় নিয়ে কুলকুচি করতে হবে। কুলকুচি করার সময় মাউথওয়াশ যেন পেটের ভেতর না যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।



সতর্কতা
১২ বছরের কম বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যাবে না। শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন। যদি দুর্ঘটনাক্রমে মাত্রাতিরিক্ত পরিমান গলঃধকরণ করে ফেলে তবে ডাক্তারের পরামর্শ নিন অথবা নিকটস্থ হাসপাতালে যোগাযোগ করুন।


অন্যান্য তথ্য : সাধারণ তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করুন। ঠাণ্ডা আবহাওয়ার কারনে সলিউশন ঘোলা হতে পারে কিন্তু ইহার এন্টিসেপটিক গুনাগুনের কোন পরিবর্তন হয় না।



সরবরাহ
ওরোস্টার অরিজিনাল: ১২০ মি.লি. ও ২৫০ মি.লি.।ওরোস্টার কুল মিন্ট: ১২০ মি.লি. ও ২৫০ মি.লি.।

 

 



মুখের দুর্গন্ধ দূর করার উপায় কী?


বিশেষজ্ঞদের মতে, মুখের ভেতরে কলোনি তৈরি করে কিছু ব্যাকটেরিয়া। এগুলো যখনই সুযোগ পায় ক্ষতি করে দাঁতের, সেই সঙ্গে মুখে গন্ধ সৃষ্টি করে। তবে বাজারে কিছু পণ্য পাওয়া যায়, যা কিনে সকাল-বিকাল কুলি করলে কিছুটা ফল পাওয়া যায়। তবে সেসব পণ্যের দাম অনেক বেশি। কি এখন চিন্তায় পড়ে গেলেন?


আরে চিন্তার কিছু নেই! কিছু প্রাকৃতিক উপাদান আছে, যেগুলো কাজে লাগিয়ে পাঁচ মিনিটের মধ্যে মুখের দুর্গন্ধ দূর করা সম্ভব।এ বিষয়ে আমি এখন লিখতে চলেছি :-


১)লেবুর রস: নিয়মিত লেবুর রস পান করুন। বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে লেবুর ভেতরে থাকা অ্যাসিডিক কনট্যান্ট, মুখ গহ্বরে বাসা বেঁধে থাকা জীবাণুদের মেরে ফেলে। ফলে খারাপ গন্ধের প্রকোপ কমতে একেবারেই সময় লাগে না। এক্ষেত্রে এক কাপ পানিতে ২ চামুচ লেবুর রস ফেলে পান করতে পারেন অথবা সেই পানি দিয়ে ভালো করে কুলকুচি করে ফেলেও দিতে পারেন।


নারিকেল তেল: এই তেলে উপস্থিত অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান নিমিষে গন্ধ সৃষ্টি করা ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে। ফলে মুখের গন্ধ দূর হতে সময় লাগে না। এক্ষেত্রে এক চামুচ নারিকেল তেল মুখে নিয়ে ভালো করে কুলি করুন। কম করে ৫ মিনিট করতে হবে। তার পর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে মুখটা।

 


লবঙ্গ: এতে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল প্রোপাটিজ, যা মুখে গন্ধ তৈরি করা ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে। মুখে একটি লবঙ্গ নিয়ে চুষতে থাকুন। দেখবেন গন্ধ একেবারে চলে গেছে।


অ্যাপেল সিডার ভিনিগার: এই প্রাকৃতিক উপাদানটির মধ্যে উপস্থিত একাধিক উপাকারী উপাদান মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।



সর্বশেষ কথা,
আমি আমার পোস্টের মাধ্যমে মুখের দুর্গন্ধ দূর করার এলোপ্যাথিক ওষুধের নাম তুলে ধরেছি । আপনারা যারা মুখের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য এলোপ্যাথিক ওষুধ ব্যবহার করতে চান তারা আমাদের সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ুন । আশা করছি তাহলে আপনারা আমাদের পোস্টের মাধ্যমে উপকৃত হতে পারবেন । এ ধরনের আরো পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটে সাথেই থাকুন । আমাদের ওয়েব সাইটে পরিদর্শন করার জন্য আপনাদের সকলকে ধন্যবাদ ।


(সূত্র: বিভিন্ন ওয়েবসাইট)